Skip to main content

কোভিড ভ্যাকসিনেশন (টিকা) – তিন মিনিটে মিথ বাস্টার (বানোয়াট কাহিনী খণ্ডন)

প্রকৃত তথ্য: সমস্ত ভ্যাকসিন ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা সম্পন্ন করেছে এবং নিরাপদ বলে বিবেচিত হয়েছে। কিন্তু এই ভ্যাকসিনগুলির সুরক্ষা পর্যবেক্ষণ অব্যাহত রয়েছে, যা সাধারণত নতুন ভ্যাকসিনগুলির ক্ষেত্রে ঘটে। ইন্টারনেটে কিছু দাবি এই গবেষণার শেষ তারিখগুলি (ফাইজারের [Pfizer] জন্য ২০২৩) ব্যবহার করে, কিন্তু এই সঠিক প্রেক্ষাপট দিতে ব্যর্থ হয়।

প্রকৃত তথ্য: ফাইজার এবং মডার্না (Moderna) ভ্যাকসিন, যারা এমআরএনএ (mRNA) নামে নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করে, কীভাবে কাজ করে তা ঘিরে এটি একটি ভুল ধারণা।

যদিও ভ্যাকসিনগুলি করোনাভাইরাসের জেনেটিক নির্দেশাবলীর একটি ছোট অংশ বহন করে (পুরো ভাইরাস নয়) আপনার শরীরকে এটির বিরুদ্ধে লড়াই করতে শিখতে সহায়তা করার জন্য, এই  মেসেঞ্জার (বার্তাবাহক) নির্দেশাবলী আপনার ডিএনএর সাথে একত্রিত করা যায় না এবং সেগুলি ব্যবহারের পরপরই আপনার শরীর সেগুলোকে ধ্বংস করে ফেলে।

প্রকৃত তথ্য: অসত্য কারণ এগুলো ভাইরাসএকটি সক্রিয় রূপ ধারণ করে না। যদি আপনার কোন অস্থায়ী পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া (সব মানুষের ক্ষেত্রে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয় না) হয় তাহলে তা কেবল আপনার নিজের ইমিউন সিস্টেম অর্থাৎ রোগপ্রতিরোধক ক্ষমতার প্রাকৃতিক সাড়া, এমনভাবে প্রতিক্রিয়া দেখায় যেন এটি একটি বাস্তব ভাইরাসের সাথে লড়াই করছে।

প্রকৃত তথ্য: কোন ভ্যাকসিনই 100% সুরক্ষা প্রদান করে না। তবে দুটি ডৌজের (মাত্রা) পরে বর্তমান ভ্যাকসিনগুলি সামগ্রিকভাবে কোভিডের বিরুদ্ধে খুব ভাল সুরক্ষা প্রদান করে। এবং এগুলো ডেল্টা ভেরিয়েন্ট (প্রকার) দ্বারা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তির বিরুদ্ধে অত্যন্ত কার্যকর (ফাইজারের ক্ষেত্রে 96% এবং অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ক্ষেত্রে 92%)।

মনে রাখবেন, এমনকি সবচেয়ে সুস্থ-সুঠাম ব্যক্তিরাও কোভিডের একটি খারাপ দশায় আক্রান্ত হতে পারেন, তাহলে আপনিই এরকম কেউ কিনা তা সবচেয়ে কঠিন উপায়টি জানার ঝুঁকি কেন নিবেন?

এছাড়াও, এমনকি হালকা উপসর্গসম্পন্ন কিছু লোক দীর্ঘমেয়াদি কোভিডে ভুগতে পারেন, যেখানে ক্লান্তি, শ্বাসকষ্ট, পেশী ব্যথা এবং মনোনিবেশ করতে অসুবিধা ইত্যাদি প্রাথমিক সংক্রমণের বহুদিন পরেও চলতে থাকে।

প্রকৃত তথ্য: এই দাবির সমর্থনে কোনও প্রমাণ নেই এবং এমন কোনও প্রক্রিয়া নেই যার মাধ্যমে ভ্যাকসিনগুলি কোনও মহিলার উর্বরতার ক্ষতি করতে পারে। ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়া একটি মিথ (বানোয়াট তথা কল্পনাপ্রসূত কাহিনী) অনুমান করেছিল যে করোনাভাইরাসের একটি স্পাইক প্রোটিন, যা ভ্যাকসিন (টিকা) দেওয়া ব্যক্তির দ্বারা উৎপাদিত অ্যান্টিবডি দ্বারা আক্রান্ত হয়, প্লাসেন্টায় পাওয়া প্রোটিনের অনুরূপ। যাইহোক, এটি অসত্য। উদ্বেগের কোনও কারণ থাকার জন্য তারা যথেষ্ট অনুরূপ নয়।

প্রকৃত তথ্য: এই মিথ (বানোয়াট তথা কল্পনাপ্রসূত কাহিনী) অনেক প্রচার অর্জন করেছে, কিন্তু এটি প্রাকৃতিক যে কোভিড সংক্রমণ এবং দীর্ঘ কোভিড যা পুরুষদের মধ্যে ইরেক্টাইল ডিসফাংশনের (লিঙ্গ দণ্ডায়মান না হওয়া) সাথে যুক্ত। টিকাদানের (ভ্যাকসিনেশন) সাথে যুক্ত পুরুষত্বহীনতার কোনও রিপোর্ট নেই এবং কোভিড সংক্রমণের এই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার বিরুদ্ধে সুরক্ষা হিসাবে ভ্যাকসিনেশন সুপারিশ করা হয়।

Share this page
Find us on